বিনোদপুর ইউপি আইড়ামারীতে পূর্ব শত্রুতার জেরে গাছ কেটে ফেলায় মামলা করার প্রক্রিয়া চলছে

প্রকাশিত: 10:39 PM, October 25, 2020

স্টাফ রিপোর্টার,সৌরাব আলী // 
শিবগঞ্জের বিনোদপুর ইউনিয়নের আইড়ামারী পালাশিপড়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বসত ভিটার বিভিন্ন ধরনের ১০টি গাছ কেটে ফেলেছে প্রতিপক্ষরা। ঘটনাটি ঘটেছে প্রতিকার চেয়ে শিবগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী তোহরুল ইসলাম। গত ১০ অক্টোবর তোহরুল ইসলামের স্বাক্ষরিত থানায় লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আইড়ামারী গ্রামের ইদ্রিশ আহম্মেদের দুই ছেলে মফিজুল ইসলাম(৪২) ও শাহাদাৎ হোসেন(৪০)পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ১০ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টার আমার বসতভিটায় অনাধিকার ভাবে প্রবেশ করে দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র দিয়ে ৭টি মেহগনি, ২টি কাঁঠাল ও ১টি আম গাছ কেটে ফেলে এবং একটি পায়খানা ভেঙ্গে নষ্ট করে দেয়। যার ফলে প্রায় ৯০ হাজার টাকার ক্ষতি হযেছে। তিনি আরো বলেন তাদের কাছ থেকে জমি কিনে নিয়েছি ১৬ শতক কিন্তু দলিল আছে ১৮ শতক নকশায় জমি আছে ১৬ শতক। নকশাতে জমি না থাকায় পরপর ঝগড়া বিবাদ হয়ে আসছে কোন সমাধান হচ্ছে না।এই জমিটির একটা সমাধান চাই বলে জানান। তোহরুল ইসলাম আরো জানান, এ সময় আমার স্ত্রী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বাধা দিলে তাকে মারপিট করে ও হুমকী দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। পরে সংবাদ পেয়ে ঘটনা স্থলে উপস্থিত হলে আমাকেও তারা বিভিন্ন ধরনের হুমকী দেয়। এব্যাপারে মফিজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি গাছ কাটার অভিযোগ স্বীকার করে বলেন, জমিজমা সংক্রান্ত ব্যাপারে দীর্ঘদিন যাবত সমাধানের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হলে বাধ্য হয়ে এ ঘটনাটি ঘটিয়েছি। যার ফলে তোহরুল মামলা করলেই একটি সমাধানের পথ বেরিয়ে আসতে পারে। ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা এ.এস.আই আব্দুল মালেক অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছি এবং সত্যতা পেয়েছি। তিনি আরো বলেন মফিজুল ইসলামের পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিশ আহম্মেদ স্থানীয় ভাবে সমাধানের জন্য মৌখিকভাবে আবেদন করেছেন। কিন্তু থানায় বিচার বসলে কোন রাই পাওয়া যায় নাই পরে আবার বিচার বসানোর কথা বলেন। মামলা করার প্রক্রিয়া চলছে।