দেবিদ্বারের ইউসুফপুরে ১০টাকা মূল্যের চাল আত্মসাৎতের অভিযোগ

প্রকাশিত: 12:56 PM, May 4, 2020

দেবিদ্বার সংবাদদাতাঃ
কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ২নং ইউসুফপুর ইউনিয়নের স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ও ডিলারের বিরুদ্ধে সরকারি ভাবে বরাদ্দকৃত ১০টাকা মূল্যের চাল আত্মসাৎ ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।
জানা যায়, গ্রামের হতদরিদ্র লোকজনের মাঝে ১০টাকা মূল্যের ৩০ কেজি চাল বিতরণের বাজেট করেছে সরকার। চাল বিতরণের জন্য স্থানীয় পর্যায়ে ডিলার নিয়োগ দেয়া হয় কামরুল হাসান।
গত ২৮এপ্রিল সরেজমিনে ইউসুফপুর ইউনিয়নের গিয়ে দেখা মেলে নানান অনিয়মের। প্রতি ৩০ কেজি চাল দেওয়া ক্ষেত্রে ওজনে ২৫-২৬ কেজি দেওয়া, কার্ডের নাম মুছে দিয়ে নতুন কারো নাম ও ছবি বসানো। প্রথমে তার কাছে ওএমএস এর কার্ড দেখতে চাইলে তিনি বলেন, মেম্বাররা আমার কাছ থেকে কার্ড নিয়ে গেছে। পরে নামের তালিকা চাইলে তালিকা নেই বলে জানায়।

 

পরে গণমাধ্যমকর্মীদের কথার প্যাচে তালিকা দিতে বাধ্য করলে তিনি গনমধ্যম কর্মীদের হুমকি দিতে থাকেন। তিনি বলেন, আপনারা আমার কিছু করতে পারবেন না। পারলে কিছু করেন। এবং নানান ধরণের ধমকি দিতে থাকে।

 

পরে এক বৃদ্ধা মহিলার কতবার চাল পেয়েছে জানতে চাইলে ডিলার কামরুল হাসান এর হুমকিতে তিনি কোনো প্রশ্নের উত্তর দেননি। তবে বৃদ্ধা আড়ালে গিয়ে জানান, তিনি মাত্র ২ বার চাল পেয়েছেন, কিন্তু তার কার্ডে ১২ বার আঙ্গুলের ছাপ রয়েছে।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই জানান, ডিলার কামরুল হাসান এলাকার গরিব ও অসহায়দের ওএমএস এর কার্ডগুলো তার নিজের কাছে রেখে নিজের ইচ্ছে মতো চাল দেন এবং ইচ্ছে মতো আঙ্গুলের ছাপ দেন।

 

তারা আরও অভিযোগ করে বলেন, স্বজন প্রীতি দেখিয়ে কার্ডের নাম পরিবর্তন করে অন্যের কার্ডে নিজের আত্মীয়দের নাম ও ছবি বসিয় চালও দিয়ে থাকেন।

এলাকাবাসী এই দূর্যোগমূহুর্তে সরকারি অনুদান ও গরিবের খাদ্য সমগ্রী রক্ষায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।