শিবগঞ্জের দৌলতপুর হাজিপাড়ায় সেমি পাকা ঘর পেল লুৎফন নেসা

প্রকাশিত: 7:21 PM, September 30, 2020

স্টাফ রিপোর্টার,সৌরাব আলী।।
শিবগঞ্জ জনসেবার জন্য প্রশাসন এই প্রতিপাদ্যে- জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশ এ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস এসোসিয়েশন সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের ভাগ্যোন্নয়নে বর্তমান সরকার নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

মুজিববর্ষে সারাদেশে গৃহহীন মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহবানে এসোসিয়েশনের সদস্যদের আর্থিক অনুদানে শতাধিক গৃহনির্মাণ হিসেবে ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় কর্মরত প্রশাসন ক্যাডারের সকল সদস্যদের আর্থিক অনুদানে শিবগঞ্জে সেমি পাকা ঘর নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

বুধবার বিকেলে বাংলাদেশ এ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস এসোসিয়েশন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার বাস্তবায়নে শিবগঞ্জ পৌর এলাকার দৌলতপুর হাজিপাড়া গ্রামে মোসা. লুৎফন নেসাকে দুই কক্ষ বিশিষ্ট সেমি পাকা ঘর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরের সদস্য সচিব ও সাবেক সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান।

এ সময় জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী সাকিব-আল-রাব্বি, গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান, শিবগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শামসুল আলম শাহসহ অন্যরা।

এ সময় সাবেক সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বলেন, দেশে দারিদ্র নিরসনে সরকারের অঙ্গীকার বাস্তবায়ন এবং ভিক্ষাবৃত্তির মত অমর্যাদাকর পেশা থেকে মানুষকে নিবৃত করার লক্ষ্যে এ জনগোষ্ঠীর পুনর্বাসন ও বিকল্প কর্মসংস্থানের জন্য সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

তিনি বলেন, জাতির পিতার স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশ হবে ক্ষুধামুক্ত ও দারিদ্রমুক্ত। আমরা জাতির পিতার সেই স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে যাচ্ছি। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে সরকারের লক্ষ্য দেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না।

প্রত্যেকটি এলাকা থেকে গৃহহীন মানুষকে খুঁজে খুঁজে ঘর করে তাদের ঘর করে দেয়া হচ্ছে। উল্লেখ্য, উপকারভোগী মোসা. লুৎফন নেসার স্বামীর নাম মো. শফিকুল ইসলাম।

অসহায়-দরিদ্র নারী তার কোন নিজস্ব জমি নেই বর্তমানে সে তার ভাইয়ের বাড়িতে বসবাস করেন।