শিবগঞ্জের শ্যামপুর ইউনিয়নের চলছে রমরমা ঘুষ বাণিজ্য

প্রকাশিত: 2:37 PM, September 15, 2020

স্টাফ রিপোর্টার,সৌরাব আলী
দপ্তরগুলোতে আজকাল ঘুষ ছাড়া কোন কাজ হয়না বলে চায়ের দোকান, বন্ধু-বান্ধবের আসর, ফুটপাতসহ সবখানেই এমন আলোচনার ঝড় বইছে। সরকার ভূমি অফিসে জমি সংক্রান্ত প্রতিটি কাজের উপর নির্দিষ্ট ফি নির্ধারণ করলেও বাধ্যতামূলকভাবে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা। আর অসহায়ত্বের মতো অতিরিক্ত টাকা গুনে দিতে হচ্ছে অফিসে কাজ করতে আসা লোকগুলোকে। এমন এক চিত্র ধরা পড়ে ক্যামেরার সামনে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর ওমরপুর গ্রামের এক কৃষক ভূমি অফিসে জমি খারিজের কাজ দেয়। শ্যামপুর ইউনিয়ন শাখা ভূমি অফিসের পিয়ন হযরত জুবায়ের খারিজ করে দেওয়ার নাম করে দাবি করে পাঁচ হাজার টাকা। চুক্তির টাকা পিয়ন জুবায়েরকে দিতে গেলে কৃষক তাকে কিছু টাকা কম দিব বলে জানায়। এসময় জুবায়ের টাকা কম নিবনা বলে সময় ক্ষেপন করতে থাকে। এক পর্যায়ে উক্ত শাখা অফিসের তহশীলদ্বার মো. শামসুজ্জামান বলেন, ভাই এক শত টাকা কম দিয়ে ঝামেলা সেরে ফেলেন। অতিরিক্ত টাকা লেনদেনের ব্যাপারে এক পর্যায়ে ভূক্তভোগীদের সাথে পিয়ন হযরত জুবায়েরের বাক বিতন্ডা হয়।

এব্যাপারে তহশীলদ্বার মো. শামসুজ্জানের সাথে কথা বলতে গেলে তিনি এড়িয়ে যাওয়ার ছলে বলেন, অরিক্তি টাকা লেনদেনের ব্যাপারে আমি কিছু জানিনা। আসলে জুবায়ের খারিজে জন্য টাকা বেশি নেয় সেটা আমার জানান নাই । তিনি আরো বলেন, ও গ্রামে নোটিশ দিতে গেলে মানুষ খুশি হয়ে দুচার দশ টাকা দেয় সেটা আলাদা কথা।