মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে ফুটবল অনুশীলনে

প্রকাশিত: 10:36 PM, July 22, 2020

কুমিল্লা ডেস্ক:
মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে ফুটবল অনুশীলনে
এটা সাক্ষাৎ মৃত্যুকে জয় করে ফেরার গল্প। গেল ৪ জুলাই রাশিয়ার তৃতীয় বিভাগের দল এফসি জামিয়া যুব দলের গোলরক্ষক ইভান জাবোরোভস্কি যখন বজ্রপাতে আহত হন, তখন কেউ ভাবেননি তিনি বেঁচে ফিরবেন! কিন্তু সৃষ্টিকর্তার অশেষ কৃপায় তিনি ফিরে পেয়েছেন নতুন জীবন। আবারো যোগ দিয়েছেন অনুশীলনে। শুধু তাই নয়, জাবোরোভোস্কি এখন এফসি জামিয়ার সিনিয়র দলের সদস্য।

 

একেই হয়তো বলে রাখে আল্লাহ মারে কে! নয়তো এভাবে বজ্রপাতের শিকার হয়েও কিভাবে বেঁচে ফিরলেন ইভান জাবোরোভস্কি। অবাস্তব কিংবা দৃষ্টিভ্রমের অজুহাতে এই ঘটনা অগ্রাহ্য করার কোন সুযোগ নেই! কারণ ক্যামেরা তো আর মিথ্যে বলে না।

গেল চার জুলাই ক্লাবের সঙ্গে যখন মস্কোর মাঠে অনুশীলন শুরু করেছিলেন ইভান হয়তো কল্পনাও করেননি কি ভয়ঙ্কর মুহূর্ত আসছে তার জীবনে। তবে প্রকৃতির আভাস ছিলো ঠিকই। থমথমে আবহাওয়ায় মেঘাচ্ছন্ন আকাশ। সেটাই বজ্র হয়ে সরাসরি আঘাত করে জাবোরোভস্কির ওপর।

বজ্রপাতের শিকার হয়ে মাঠে লুটিয়ে পড়েন তিনি। ক্লাব সতীর্থরা তখন মাঠের বাইরে পানি পানের বিরতিতে ব্যস্ত। হঠাৎ দৃষ্টিগোচর হলো কোচের। অনেকক্ষণ ডাকাডাকির পরও জবাব না এলে মেডিকেল টিম তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। পর্যবেক্ষণের পর ডাক্তাররা তো ধরেই নিয়েছিলেন আর হয়তো কখনোই ফিরবেন না জাবোরোভস্কি।

এফসি জামিয়া যুব দলের কোচ আন্তন বাসভ বলেন, ‘ডি বক্সের আশেপাশে ভয়ঙ্কর একটা শব্দ শুনলাম। এরপর দেখলাম ইভান সেখানে পড়ে আছে। আমরা দ্রুত দৌড়ে তার কাছে গেলাম। মাত্রই সে পেনাল্টি এরিয়ায় অনুশীলন করছিলো। যেখানে ঘটনাটি ঘটে। সে মুখ থুবড়ে পড়েছিলো। পরে তাকে উঠানোর চেষ্টা করি। তার জার্সি গায়ের সঙ্গে লেগে ছিলো। আসলে পুড়ে গিয়েছিলো ওটা।’

জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকা এই তরুণ গোলকিপার সাড়া দেন দ্রুতই। এ যে অলৌকিক ঘটনাই বটে। সপ্তাহ তিনেক আগেও যার ফেরা নিয়ে ছিলো ঘোর সংশয়, তিনিই প্রস্তুত হয়ে মাঠে ফিরেছেন। তার কণ্ঠে কৃতজ্ঞতা সৃষ্টিকর্তার প্রতি।
এএফসি জামিয়ার গোলরক্ষক ইভান জাবোরোভস্কি জানান, ‘আমার শুধু মনে আছে, আমি বাসা থেকে বের হয়েছি অনুশীলনের জন্য। এরপর যখন চোখ খুললাম দেখি আমি হাসপাতালে। আমার ফুসফুস মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলো এবং শ্বাস নিতেও বেশ কষ্ট হচ্ছিলো। তবে এটা এখন ভালোর দিকে। আমার কাছে মনে হচ্ছে নতুন জীবন ফিরে পেয়েছি আমি। সৃষ্টিকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা।’

যে মৃত্যুকে জয় করতে পারে, প্রতিপক্ষের সামনে প্রাচীর হয়ে দাঁড়ানো তার কাছে তুচ্ছ। আর তাই জোবোরোভস্কির ওপর আস্থা ক্লাবের। যুব দল থেকে তিনি এখন মুল দলের গোলরক্ষক।