দেবিদ্বার উপজেলায় খাল-বিল ভারাট ও দখলের কারনে একটু বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা

প্রকাশিত: 11:17 AM, July 22, 2020

মোহাম্মদ উল্লাহ্ ভূইয়া(সোহাগ)
দেবিদ্বার উপজেলায় খাল-বিল রক্ষানা-বেক্ষনের অভাবে দখল ও ভরাট হয়ে যাচ্ছে। ইতোমধ্যেই নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে বহু খাল। এতে করে বর্ষাকালে নিন্মাঞ্চলে দেখা দেয় জলাবদ্ধতা। এলাকাবাসীর অভিযোগ প্রতিবছরই দেবিদ্বার উপজেলার নিন্মাঞ্চলের মানুষ বর্ষাকালে জলাবদ্ধতার শিকার হয়ে অবর্ননীয় দূর্ভোগের শিকার হয়ে আসছে। বর্ষা আসছে, এবারও দুর্ভোগে পড়বে এ উপজেলার মানুষ। অথচ খালগুলো উদ্ধার করে পানি চলাচলের উপযোগী করা হচ্ছেনা। অন্যদিকে অনেক এলাকায় খালগুলো ভরাট,ও দখল করে গড়ে তোলা হচ্ছে নানা ধরণের স্থাপনা।

দেবিদ্বার উপজেলায় এই খাল দখলদার বাহিনীর দাপট দিনদিন বাড়ছে। প্রতিরোধ ও খাল সংরক্ষনে কোন উদ্যোগ না থাকায় দেবিদ্বার উপজেলার অধিকাংশ খালের উপর এখন নানা স্থাপনা গড়ে উঠেছে।

দেবিদ্বার উপজেলার এক পরিসংখ্যানে উল্লেখ করা হয়েছে এ উপজেলায় প্রায় ১৪টি খাল তালিকায় থাকলেও বাস্তবে নেই । অধিকাংশ খাল বালি দিয়ে ভরাট করা হয়েছে। এসব খাল এখন শুধু নামে মাত্র। অধিকাংশ দখলে চলে গেছে। এ গুলোতে গড়ে তোলা হচ্ছে বাসাবাড়ী দোকান পাটসহ নানা স্থাপনা। ফলে পানি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় এখানকার বর্জ্য বিভিন্ন স্থানে জমে পচে মজে দূর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। পরিবেশ দূষন করছে।দেবিদ্বারের প্রশাসন ও প্রশাসক কর্মকর্তারা এক্ষেত্রে দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিচ্ছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

অন্যদিকে উপজেলার বোশনা,বারেরা,ছোট আলমপুর, বড় আলমপুর,পৌরসভার ভেতরে প্রায় সবকয়টি খাল দখল ও ভরাট করে বিভিন্ন ভূমি দস্যু জায়গা সম্প্রসারণ করেছে। খাল ভরাট ও দখলের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ প্রত্যক্ষ করে আসলেও খাল রক্ষায় কোনো পদক্ষেপ নিতে এগিয়ে আসছেনা।দেবিদ্বার উপজেলার সুশীল সমাজের কয়েকজন জানান,ইকরা নগরী,বারেরা হয়ে বোশনা সেমি টাউন গড়ে উঠার বিষয়টি আমাদের জন্যে সুখবর। কিন্তু এই সেমি টাউন গড়ে তোলার আড়ালে জমি দখলের ব্যবসা জমজমাট হয়ে উঠেছে। বালু দিয়ে খাল ভরাট করে ব্যবসাকে জমজমাট করে তুলেছে দখলদাররা।প্রতিবাদ করলে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ভয়ভীতি দেখানো হয় বলে অভিযোগে প্রকাশ।

দেবিদ্বার উপজেলার আওয়ামী লীগের কয়েক জন নেতৃবৃন্দ জানান দেবিদ্বার উপজেলায় খাল-বিল দখলের ঘটনা সত্য।খালের পাশের জমির মালিক ও দখলদার বাহিনী নানাভাবে খাল-বিল দখল বানিজ্য অব্যাহত রেখেছে। এতে করে নিরীহ ও গরিব লোকজন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বেশি।বিশেষ করে দেবিদ্বার পৌর শহরকে জলাবদ্ধতার হাত থেকে রক্ষার্থে আমাদের জনপ্রতিনিধিদেরকে ড্রেনেজ ব্যাবস্থাকে উন্নতিকরন সহ খাল বিল দখল মুক্ত করতে হবে।