বরিশাল বাকেরগঞ্জের গোমা সেতু নির্মান কাজে গাফেলতি মেয়াদ উত্তির্ন হলেও কাজের নেই অগ্রগতি,

প্রকাশিত: 9:47 PM, June 21, 2020

শাহিন হাওলাদার // বরিশাল প্রতিনিধি // বরিশাল (দিনারপুল)- লক্ষীপাশা – দুমকি পটুয়াখালী জেলা মহাসড়কের ১৪ তম কিলোমিটার রাঙ্গামাটি নদীর উপর গোমা সেতু নির্মান প্রকল্পে ব্যপক অনিয়ম ও গাফিলতির অভিযোগ। প্রকল্পটি (২০১৪-২০১৫) অর্থ বছরের বার্ষীক উন্নয়ন কর্মসূচী (এ ডি পি) এর আওতায় বাস্তবায়ন করা হয়। যার টেন্ডার আই ডি – ১৭০৬৬৩।

 

বাকেরগঞ্জ উপজেলার পূর্ব অঞ্চলের অবহেলিত জনগোষ্ঠীর জন্য গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটিতে বহুকাল যাবত ফেরি চলাচলে অনিয়ম দুর্নীতির জন দূর্ভোগে অতিষ্ঠ জনগণের সুবিধার কথা বিবেচনা করে, সাধারণ মানুষের দাবির প্রতি সন্মান রেখে সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচীর তালিকায় অর্ন্তভূক্ত হলেও কাজটি যেনো শেষ হচ্ছে না কিছুতেই। ৫৮২৯. লক্ষ টাকা ব্যায়ে ২৮৩.১৮৮ মিটারের এ সেতুটি বরিশাল রোড এন্ড হাইওয়ে ডিপার্টমেন্টের আওতায় নির্মান কাজের ঠিকাদার মাহাফুজ খানের খেয়াল খুশী মত সেচ্ছাচারীতায় চলছে কর্মকান্ড। সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী কাজের তদারকিতে সর্বশেষ কবে আসছেন সে বিষয়ে কর্মরত ম্যানেজারের কাছে কোনো তথ্য নেই। এমন কি সাইডে নেই কোনো নিরাপত্তা বলয়। নেই সেতুর বিষয় সুনির্দিষ্ট তথ্য। নিন্মমানের রড দিয়ে শ্রমীকরা কাজ চালিয়ে নিচ্ছেন।

 

১৫-৫-২০১৮ থেকে ১৪-৫-২০২০ তারিখ মোট ২৪ মাসের ভিতর কাজটি শেষ করার মেয়াদ উত্তির্ন হলেও অর্ধ অবধি সেতুটি দৃশ্যমান হয়নি। মাঝখানে ব্রীজের উচ্চতা বাড়ানোর জন্য আই ডব্লিউ টি এর প্রচেষ্টার অজুহাতে নির্মান কাজ এক বছর ধরে বন্ধ থাকলেও তাদের সে প্রচেষ্টা প্রস্তাব বাতিল হলে। নতুন করে কাজ শুরু হলেও কাজের ধীর গতিতে থমকে আছে উন্নয়ন।

 

চরম ভোগান্তির মধ্যে দিয়ে এ অঞ্চলের মানুষকে টলার ও ফেরীর উপর নির্ভর করেই চলতে হচ্ছে। কবে নাগাদ কাজ শেষ হবে সে বিষয় এখনো সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই। বিষয় টি নিয়ে চিন্তিত কেন্দ্রীয় জাসদ নেতা মহসিন জানান বহু কাঠখড় পুড়িয়ে বাকেরগঞ্জ উপজেলা বাসীর কল্যানের কথা বিবেচনা করে তৎকালীন মাননীয় মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন সাহেবকে বললে তারই প্রচেষ্টায় সেতুটি একনেক সভায় পাস হয়।

 

কিন্তু কাজের মেয়াদ উত্তির্ন হলেও এখনো কাজ শেষ হয়নি এ বিষয়ে তিনি বাকেরগঞ্জ উপজেলা বাসীর চরম ভোগান্তীর কথা বিবেচনা করে দ্রুত কাজটি শেষ করার জন্য বরিশাল রোড এন্ড হাইওয়ে ডিপার্টমেন্টে সহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।