কুমিল্লায় হিন্দু নারীর সৎকার দিলেন সেচ্ছাসেবক লীগ ১০১ জন টিমের নারী সদস্যরা

প্রকাশিত: 1:20 AM, June 14, 2020

নিজস্ব প্রতিনিধি // কুমিল্লার চান্দিনায় করোনায় মৃত হিন্দু সম্প্রদায়ের নারীর মরদেহ সৎকার করল মুসলিম সম্প্রদায়ের কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী সেচ্ছাসেবকলীগের প্রভাবশালী নেতা লিটন সরকারের নেতৃত্বে গঠিত ১০১জন বিশিষ্ট টিমের নারী সদস্যরা সহ অন্যান্যরা।

জ্যোতি রানী চক্রবর্তী (৫৫) চান্দিনা উপজেলার পশ্চিম বেলাশহর গ্রামের অমল চক্রবর্তীর স্ত্রী। তিনি কয়েকদিন যাবৎ ঠান্ডা কাশি জ্বর শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। আজ শনিবার ( ১৩ জুন) তিনি মৃত্যুবরন করেন। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে সামাজিক বন্ধনের দূরত্ব সৃষ্টি করলেও কুমিল্লার দেবিদ্বার এবং চান্দিনায় ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে অসাম্প্রদায়িক সম্পৃতির সেতুবন্ধন তৈরি করারও দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন হাজী লিটন সরকার।

 

লিটন সরকার আবেগর স্বরে বলেন, প্রতিটি মৃত্যুই বেদনাদায়ক আর শেষ বিদায়ের স্বাক্ষী হওয়া এটা আরও যন্ত্রনাদায়ক তবুও আজ শান্তি লাগছে আনন্দ লাগছে এই ভেবে, একটি হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের শেষ কাজটিও আল্লাহ আমাকে দিয়ে করিয়েছেন। হিন্দু নারীর সৎকার কাজ শেষ করে লিটন সরকার সহকর্মীদের নিয়ে একটি ফটো দিয়ে ফেইসবুকে লিখেন,
মনে হচ্ছে বিশ্ব জয় করে এসেছি, নারী সদস্যদের নিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের নারীর সৎকার করলাম। যদিও এর আগে অনেকের জানাজা দাফন হিন্দুদের সৎকার করেছি তবে কখনও নারী হিন্দুদের সৎকার এই প্রথম। তিনি বলেন, আমাদের সঙ্গে সেচ্ছাসেবক লীগের ১০১ জন বিশিষ্ট টিমের নারী সদস্যরা ছিলেন তারপরও অনেক কষ্ট হয়েছে তবে কাজ শেষে খুবই ভালো লাগছে।

 

সৎকার কাজে সহযোগিতায় ছিলেন,ফারজানা আক্তার, আবাশা আহমেদ, গনেশ, জেমস, জসিম, ওয়ালিদ, সুমন, কাউছার সরকার, আবিদ হাসান, খলিলুর রহমান, পপ সুমন, হাবিবুর রহমান জনি, রয়েল সহ প্রমুখ।

সেচ্ছাসেবী এই টিমের প্রসংশা করে হিন্দু সম্প্রদায়ের একজন বলেন, নিঃসন্দেহে এটি একটি প্রশংসনীয় এবং মানবিক উদ্যোগ। মো. লিটন সরকারের এমন উদ্যোগকে আমরা সাদুবাদ জানাই। করোনা মহামারিতে নিজেদের জীবন বাজি রেখে তারা মুসলিম ধর্মীবলম্বীদের দাফন কাজের পাশাপাশি সনাতন ধর্মীবলম্বীদের সৎকারে এগিয়ে আসাকে মানবতার জয় বলে মনে করি। আমি ব্যক্তিগতভাবে ওই স্বেচ্ছাসেবী টিমের সর্বাঙ্গীন মঙ্গল ও তাদের সুস্বাস্থ্য কামনা করি।