মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ১২:২৮ অপরাহ্ন
ব্র্যাকিং নিউজ :
পিতার আদর্শ বু্কে ধারণ করে তুমুল জনপ্রিয়তা নিয়ে পূনরায় বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে জাহিদুল হাসান বাবু। নাসিরের সঙ্গে থাকা ওই ৩ নারী রাজি হলে… রাউজানের গণি পাড়ার মেয়ে কিংবদন্তি শাবানার আজ জন্মদিন। নাটোরের সিংড়ায় রাতের আধাঁরে ব্যাবসায়ী ইসমাইল কে হত্যার চেষ্টা। ছাতকে এক স্কুল ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু ভোলাহাট থানা পুলিশের অভিযানে ফেন্সিডিলসহ আটক-২ সিরতা ইউনিয়নে ৯ কাঠা জমির উপর হতে যাচ্ছে সর্বসাধারণের জন্য কবরস্থান। শিবগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় এনজিও কর্মী নিহত-১ ময়মনসিংহ ডিবি’র অভিযানে চোরাই রিক্সাসহ ০১ জন গ্রেফতার। চান্দিনায় ৩৫০ পিস ইয়াবা ও ৪কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক

received_510545346955009

প্রতিনিধির নাম :
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৪ জুন, ২০২১

আরোও পড়ুন

  • জাহিদুল ইসলাম /// বাকেরগঞ্জ উপজেলার ১৩নং পাদ্রীশিবপুর ইউনিয়নের সর্বকনিষ্ঠ চেয়ারম্যান খ্যাত জাহিদুল হাসান বাবু পূনরায় তুমুল জনপ্রিয়তায় নৌকা প্রতীক নিয়ে এবার ও বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হওয়ার পথে। একদা চুরি ডাকাতি ও মাদকের অভায়অরন্য খ্যাত পাদ্রী শিবপুর ইউনিয়নকে আধুনিকতায় রুপদেওয়া পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন-আর-রশিদ চেয়ারম্যানের অকাল মৃত্যুতে তারই উত্তরঅধিকারী সুযোগ্য সন্তান বর্তমান সফল চেয়ারম্যান জাহিদুল হাসান বাবু পিতার আদর্শ বুকে ধারণ করে তারই অসম্পূর্ণ কাজ গুলো একেরপর এক সফলভাবে সম্পূর্ন করে ইউনিয়নটিকে আজকে আধুনিক মডেল ইউনিয়ন হিসাবে রুপ দিতে চলছেন। অত্যান্ত মেধাবী, বিচক্ষণ ও কর্মঠো সেবাপরায়ণ মানষীকতার কারনে তিনি আজ জনপ্রিয়েতায় শীর্ষ অবস্থান দখল করে নিয়েছেন।   স্কুল জীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবীত হয়েই ছাত্র লীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত হয়ে। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ইউনিয়নের গন্ডি ছাড়িয়ে জেলা উপজেলার শীর্ষ নেতৃত্বের নজর কারেন। পিতার হঠাৎ মৃত্যু তার মাথার উপর আকাশ ভেঙে পরলে ও দৃঢ়তার সাথে পরিস্থিতি সামলে উঠতে সময় লাগেনি তার। মেধা ও কৌশল অবলম্বন করে খুব সহজেই অপেক্ষা কৃত শক্তিশালী প্রতিপক্ষর বিপরীতে বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করে বিজয়ের মুকুট গলায় পরে চমকে দেন উপজেলা বাসীকে। উপজেলার প্রতিটা প্রোগ্রামে তার সরব উপস্থিতি সবার দৃষ্টি কাড়ে। বিশেষ করে উপজেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে তার রয়েছে শক্তিশালী অবস্থান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রিয় পৌর মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়ার অত্যান্ত স্নেহধন্য সর্ব কনিষ্ঠ এ চেয়ারম্যান আজ পাদ্রীশিপুর ইউনিয়নে তুমুল জনপ্রিয়তা নিয়ে শীর্ষ অবস্থান দখল করে নিয়েছেন। তার এত জনপ্রিয়তার মূলে রয়েছে সরকারি বরাদ্দর সুসম বন্টন ও ব্যাক্তিগত তহবিল থেকে বিপদে আপদে সেবার মানষীকতা।     গরীব দুঃখী মেহনতী মানুষের অত্যান্ত কাছের বন্ধু হয়ে অপ্রতিরোধ্য গতিতে চলছে তার নির্বাচনী জনসংযোগ ও প্রচারণা। যেখানেই পা ফেলছেন সেখানেই সাধারণ মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে উঠছেন তিনি। বিপুল সংখ্যক কর্মী সমার্থকদের ভীরে মুখরিত হয়ে নির্বাচন প্রচারনায় এগিয়ে যাচ্ছেন নিরলস ভাবে। তিনি আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সবার দোয়া ও সমার্থন কামনা করছেন।

  • নিজস্ব প্রতিবেদক //  চিত্রনায়িকা পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে গ্রেপ্তার ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদের সঙ্গে থাকা ৩ নারী যদি রাজি হয় তাহলে আরও একটি মামলা হবে। এছাড়া আরও একটি মাদক মামলা হবে উত্তরা পশ্চিম থানায়। একই সঙ্গে নাসিরের সহযোগী তুহিন সিদ্দিকী অমির বিরুদ্ধেও একই মামলা দায়েরের প্রস্তুতির কথা জানিয়েছে পুলিশ। সোমবার বিকালে উত্তরার এক নম্বর সেক্টরের ১২ নম্বর সড়কের একটি বাসা থেকে এই দু’জনের সঙ্গে তিন নারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। নারীরা হলেন- লিপি আক্তার (১৮), সুমি আক্তার (১৯) ও নাজমা আমিন স্নিগ্ধা (২৪)। গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার মশিউর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, সাভার থানার মামলা ছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে মাদক মামলা হবে উত্তরা পশ্চিম থানায়। ওই তিন নারী যদি রাজি হয়, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক যৌন কাজ করানোর অভিযোগ এনে আরও একটি মামলা হবে।“ মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন বলে জানিয়েছে পুলিশ। এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান, উত্তরার যে বাসা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে সেটি স্নিগ্ধা নামের নারীর। “এই বাসায় নাসির ও অমি ‘আমোদ-ফুর্তি’ করতে আসতেন,” বলে দাবি করেন তিনি। গ্রেপ্তার অভিযানের সময় ওই বাসা থেকে এক হাজার ইয়াবা ও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের বিদেশি মদ-বিয়ার উদ্ধার করা হয়। পরীমনির অভিযোগের পর রোববার রাত থেকে ঘটনাটি আলোচনায় রয়েছে। সোমবার সাভার থানায় নির্যাতন ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে নাসির উদ্দিন মাহমুদসহ ছয়জনের নামে মামলা দায়ের করেন এই অভিনেত্রী। এরপর ৫জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এই পাঁচ আসামি রাতে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে থাকবে জানিয়ে ঢাকা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত সুপার আব্দুল্লাহিল কাফী বলেন, মঙ্গলবার শোন অ্যারেস্ট দেখিয়ে তাদের আদালতে হাজির করা হবে।

  • শাহাদাত হোসেন, রাউজান// বাবা মৃত মোহাম্মদ আবুল ফায়েজ চৌধুরী ও মা ফজিলাতুন্নেসা ঘরে জন্মনেন একসময়ে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে সবচেয়ে জনপ্রিয় নায়িকা শাবানা। ১৯৫২ সালের ১৫ই জুন চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার ডাবুয়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম ডাবুয়া গ্রামের এলাকার গণি পাড়া গ্রামের গণি চৌধুরী বাড়ীর মেয়ে আফরোজা সুলতানা রত্না জম্ম গ্রহণ করেন। সেই পরিবারের বড় সন্তান ছিলেন। ছোট বেলায় অনেক বছর তাঁর পরিবারের সাথে ডাবুয়ায় শাবানার শৈশব কেটেছিল গ্রামে। ছোট বেলায় তাঁকে সবাই আফরোজা সুলতানা (রত্না) নামে গ্রামে পরিচিত। ঢাকায় চলে যাওয়ার পর আফরোজা সুলতানা (রত্না) পরিবতে শাবানা নামটি রাখা হয়। ছোট বেলায় তাঁর শৈশবের দিন গুলো রাউজানের ঐ গ্রামে খেলাধূলা পড়াশোনার মধ্যে সময় কেটেছিল প্রকৃতির সাথে। শাবানা গ্রামে তাঁকা অবস্থায় স্থানীয় রামসেবক প্রাথমিক বিদ্যালয় পড়াশোনা শেষ করে ভর্তি হয় ডাবুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ালেখা চলা অবস্থায় পরবর্তীতে বাবার চাকরির সুবাদে তাঁকে ঢাকার গেন্ডারিয়ার মনিরা রহমান গার্লস হাই স্কুলে নিয়ে যাওয়া হয় সেখানে ভর্তি হন তিনি। তাঁরা ঢাকায় চলে যাওয়া পর কয়েক বার নিজের শৈশব কাটানো জন্মস্থানে আসা হলেও, নিজ গ্রামে এখন তাঁদের পদচারণা পড়ে না বললেই চলে।   বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সিতে বসবাস করছেন শাবানার পরিবার। মাঝে মাঝে ঢাকায় আসতে দেখা গেলেও কিন্তু নিজের গ্রামের বাড়ি যেখানে তাঁর জন্ম রাউজানে এক যুগের বেশি সময় ধরে তাঁরা আসেনা। তাঁর নিজ গ্রামের মানুষরা প্রতিনিয়ত স্বপ্ন দেখেন গ্রামের সবার প্রিয় রত্না হয়তো কোন একদিন সবাইকে দেখতে আসবেন। সরজমিন গিয়ে দেখা যাই, সাদা রঙের একটি অনেক বছর আগের পুরাতন বাড়ি। অনেক পুরানো ইটের তৈরি একটি টিনের ঘর। ঘরের দেয়াল-দরজা-ও লাগানো তালায় ঝং ধরে আছে যেন বহু বছর ধরে। শাবানার গ্রামের মানুষ’রা জানান গত ১৪/১৫ বছর আগে শাবানা গ্রামে এসেছিলেন, তাঁর পর আর সেই গ্রামে তাঁর পদচারণা পড়েনি। গ্রামের লোকজন আরও জানান, শাবানা গ্রামের বাড়িতে না আসলেও ২০১০/১১ সালের দিকে শেষ একবার শাবানার মা ফজিলাতুন্নেসা এই বাড়িটিতে আসেন সেই সময়ে শাবানার ভাই-বোন রিপন, শাহীন, রিজভি ও রনজিনাকে নিয়ে গ্রামে আসেন। এরপর তারাও আর এই গ্রামের বাড়িতে আসেনি। শাবানাদের বাড়ি সাথে লাগানো তাঁদের চাচার বাড়ি। একটি পাকা ঘর, তারও সেই গ্রামে থাকেনা, তারা চট্টগ্রাম শহরে থাকেন, তবে তাঁরা সুযোগ পেলে চলে আসেন গ্রামের বাড়িতে। এছাড়াও রাউজানের মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছ, রাউজানের ঐতিহ্য বাহী ঘটনার (মলকা বানু) ইতিহাস নিয়ে জনপ্রিয় ছবি মলকা বানু’র শুটিং করেছিলেন শাবানা রাউজানের কয়েকটি এলাকায়। শাবানার চলচ্চিত্রে ইতিহাস টেনে জানা যায়, ১৯৬৭ সালে (চকোরী) চলচ্চিত্রে নাদিমের বিপরীতে নায়িকা হয় শাবানা, ছবির পরিচালক ছিলেন এহতেশাম। পরে একে একে ৩০০ টির বেশি ছবিতে অভিনয় করেন তিনি। তবে জুটি হিসেব নায়ক আলমগীর-শাবানা জুটি ছিল বাংলাদেশের সিনামা জগতে সবচেয়ে জনপ্রিয়। সেই সঙ্গে এই জুটির রেকর্ড গড়েন শাবানা। নায়ক রাজ্জাক, ওয়াসিমসহ এদের সাথে অসংখ্য ছবিতে তাঁর অভিনয় ছিল দেখার মতো।   পরে ১৯৯০ কাছাকাছি সময়ে তিনি বেশির ভাগ ছবিতে ভাবি বা মায়ের অভিনয়ে করতেন। সেখানেও তাঁর অভিনয় দর্শকের জনপ্রিয়তা পাই। ২০০০ সালে হঠাৎ রূপালী জগৎ থেকে তিনি আড়ালে চলে যান। আর কোন ছবিতে তাঁকে তেমন একটা দেখা যাইনি। ষাট দশকের শেষ থেকে নব্বইয়ের দশকে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে ছিলেন শাবানার অভিনয়। এই রাউজানের ডাবুয়া গ্রামে বেড়ে ওঠা সেই গ্রামের বাড়ির মানুষ’রা প্রতিনিয়ত শাবানার কথা বলেন হয়তো আবারও তার পদচারণা মুখরিত হবে গ্রামের পরিবেশ। শাবানার বয়স হলেও গ্রামের মানুষের মাঝে শাবানা তাঁদের সেই ছোটবেলার আফরোজা সুলাতানা রত্না হিসেবে আছেন। হয়তো কোন একদিন রাউজানের নিজ বাড়িতে আসবেন সাদা রঙের টিনের বাড়ি ও ঝং ধরা তালার আগমন ঘটবে। শাবানা অভিনয়ের জন্য এগারো বার ও প্রযোজক হিসেবে একবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন এবং সর্বশেষ ২০১৭ সালে পান চলচ্চিত্রে আজীবন সম্মাননা।

  • বেল্লাল হোসেন বাবু, স্টাফ রিপোর্টার // নাটোরের সিংড়ায় ৩ নং ইটালি ইউনিয়ন বনকুড়ি গ্রামের ব্যাবসায়ীক ইসমাইল কে দেশি অস্ত্র দিয়ে হত্যার উদ্দেশে মাথায় আঘাত করে সবুজ আলী। আহত মোঃ ইসমাইল হোসেন (৪০) বলেন,সোমবার দিবাগত রাত ১০..৩০ ঘটিকার দিকে আমি রাস্তা দিয়ে আমার পুকুরে চাষ করা মাছ দেখতে যাওয়ার পথে হঠাৎ রাস্তায় দেখতে পাই একটি বড় আকারের সাপ, সাপটি মারার মতো আমার হাতে লাঠি ছিলো না, এসময় মোঃ সবুজ আলী (৩৫) একটি লোহার ভাড়ি অস্ত্র দিয়ে আমার মাথায় আঘাত করে, আমি চিৎকার করিতে থাকিলে, আমার ডাক চিৎকার শুনিয়া গ্রামের পাড়া প্রতিবেশি এসে আমাকে রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় পড়ে থাকা দেখতে পায়। প্রতিবেশীরা তাহাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য সিংড়া উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।     এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায় যে মোঃ সবুজ আলী র বাড়ি শালমাড়া গ্রামে ছিলো, সে মোটামুটি ছয়মাস হলে বুনকুড়ি গ্রামে এসে বসবাস করছে।তার চলাফেরা অন্য রকমের সে আসলেই একজন সন্ত্রাস বলে মনে হয়, আমরা চাই তদন্ত সাপেক্ষে অপরাধীর সাথে যাহারা জরিত আছে সবাইকে আইনের আওতায় নিয়ে এসে ন্যায্য বিচারের দাবি জানাই।মোঃ ইসমাইল হোসেন কে ষড়যন্ত মূলক হত্যা করতে চেয়েছিলো কিন্তু ইসমাইলে এর চিৎকারের কারণে পাড়া প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসার কারণে সে তাহার স্ত্রী কে সাথে নিয়ে দৌড়ে পালিয়ে গিয়েছে। তবে এবিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

  • সেলিম মাহবুব, ছাতক. // ছাতকে জুম্মান আলী (১১) এক স্কুল ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যুর হয়েছে। ৩য় শ্রেনীতে পড়ুয়া ওই শিশুটির আকষ্মিক মৃত্যু নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। জুম্মান আলী উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নের লক্ষিবাউর গ্রামের কামরুল ইসলামের ছেলে। সোমবার সকালে শিশুটির লাশের ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।   এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। জানা যায়, রোববার বিকেল ৪টায় লক্ষিবাউর গ্রামের কামরুল ইসলামের ছেলের জুম্মান আলীর সাথে একই এলাকার প্রতিবেশী নুর ইসলামের ছেলে নুর মিয়ার বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে জুম্মান আলীর টুকরো ইটের আঘাতে আহত হয় নুর মিয়া। আহত নুর মিয়া এ ঘটনায় জুম্মানের বাবা কামরুল ইসলামের কাছে নালিশ করলে তিনি নুর মিয়াকে সান্তনা দেন।   রাত ৮টায় কামরুল ইসলাম বাড়ীর পাশে একটি রাইস মিল সংলগ্ন বাঁশের সাথে গলায় ওড়না পেছানো ঝুলন্ত অবস্থায় জুম্মানকে পাওয়া যায়। পরে জুম্মানকে ছাতক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তৃব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ নাজিম উদ্দিন জানান, মৃত শিশুটির শরীরে আঘাতে চিহ্ন রয়েছে। ময়না তদন্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারন জানা যাবে।

এই জাতীয় আরোও নিউজ দেখুন

ফেসবুকে আমরা আমাদের ফলোও করুন

© All rights reserved © 2018-2021 VORERCOMILLA.COM
ডিজানাইনার বাই এ,কে আজাদ
themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!