ঢাকাThursday , 19 August 2021

বিশ্বনাথে খুুনি সাইফুল সাড়ে চার মাসেও ধরাছোঁয়ার বাহিরে

Link Copied!

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি : সিলেটের বিশ্বনাথে আলোচিত স্কুলছাত্র সুমেল (১৮) হত্যাকাণ্ডের চার মাস আঠারো দিন অতিবাহিত হয়েছে। তবু, এতোদিনেও হত্যাকাণ্ডে প্রধান অভিযুক্ত ‘খুনি সাইফুল’ ওরফে লন্ডনী সাইফুলকে গ্রেফতার করতে পারেনি আইনশৃংখলা বাহিনী। উদ্ধার হয়নি হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত আগ্নেয়াস্ত্রও। ঘটনার দিন পুলিশের চোখে ‘ধুলো’ দিয়ে তাদের সম্মুখ দিয়েই লাপাত্তা হয় সে।

এরপর থেকে তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।
গ্রেফতারে দু’দফা পুরস্কার ঘোষণা হলেও, এ পর্যন্ত কেউই অবস্থান নিশ্চিত করতে পারেনি ধূর্ত এই খুুনির। সবকিছু ছাপিয়ে সবার মনে এখন একটাই প্রশ্ন, কাদের প্রশ্রয়ে? কোথায় লুুকিয়ে চিহ্নিত এই খুুনি? সে কি নাগালের বাহিরে?

হত্যা মামলার বাদী সুমেলের চাচা ইব্রাহিম আলী সিজিলের অভিযোগ, প্রকাশ্য দিবালোকে সাইফুল তার বাহিনী নিয়ে নিজেই গুলি করে সুমেলকে হত্যা করে। এ ঘটনায় আমি ২৭ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দেই। মামলার প্রধান অভিযুুক্ত সাইফুলসহ এজাহারের ১০ নাম্বার আসামি পর্যন্ত কাউকেই এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়নি। এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাতসহ ইতিমধ্যে ১১জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অথচ সাইফুল ও তার অস্ত্রধারি ক্যাডার বাহিনীর মূল সদস্যরা এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে। উদ্ধার হয়নি অস্ত্রও।

এতে আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।
গত ১লা মে প্রতিপক্ষের সাথে সংঘর্ষকালে প্রকাশ্যে গুলি চালিয়ে উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চৈতননগর গ্রামের মানিক মিয়ার ছেলে ও স্থানীয় স্কুলের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী সুমেলকে হত্যা করে সাইফুল আলম।

সে একই গ্রামের মৃত আফতাব মিয়ার ছেলে। ঘটনার পরে স্পটে উপস্থিত পুলিশের চোখের সামনে দিয়েই পালিয়ে যায় সাইফুল। পরে সাইফুল ও তার বাহিনীর অস্ত্রধারী ক্যাডারদের গ্রেফতার করার দাবিতে আন্দোলনে ফুঁসে ওঠে এলাকাবাসী।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে খুনি সাইফুলকে দ্রুত আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দেন সিলেটের ডিআইজি ও পুলিশ সুপার।
অভিযোগ ওঠে পুলিশের সাথে সখ্যতা থাকায় ঘটনাস্থল থেকে অনায়াসে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় হাওর পাড়ের ত্রাস, জলদস্যু সাইফুল।

এ বিষয়ে বিশ্বনাথ পুলিশ স্টেশনের অফিসার ইনচার্জ গাজী আতাউর রহমান বলেন, কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ও লকডাউন সব মিলিয়ে, কিছুদিন পুলিশের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত ছিল। সুুমেল হত্যা মামলার অভিযুক্তদের গ্রেফতারে সব রকমের প্রচেষ্টা চলছে। অচিরেই সুফল আসবে বলে তিনি জানান।

error: Content is protected !!