ঢাকাSunday , 1 August 2021
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বাঘার ফাতেমা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিকে রক্ত আদান প্রদানে নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা,বিপাকে রোগীরা।

Link Copied!

করোনায় দেশের অর্থনৈতিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে।নিম্নবিত্ত থেকে মধ্যবিত্তরা অর্থের অভাবে অনাহারে দিন কাটাছে।সরকারের পক্ষ থেকে খাবার থেকে অনান্য সাহায্য সহযোগিতা করে আসছে।যার যতটুকু আছে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে বলা হচ্ছে।

কিন্তু করোনার কারনে অনেক এ এই মহামারিকে হাতিয়ার বানিয়েছে। বাজারে যে ব্লাড ব্যাগ ৭০ -৮০ টাকাতে পাওয়া যায়।সেই ব্যাগ অসহায় পরিবারের কাছ থেকে ৪৫০ টাকা নিচ্ছে বাঘার ফাতেমা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার।

শুধু তাই নয়।যেখানে সেটের দাম শুধু ৭০ টাকা সেখানে ব্লাড ব্যাগ ৪৫০, সিরিঞ্জ ১৫০ টাকা,ক্যানোলা ১৫০ টাকা নেওয়া হয়।

তার সুত্র ধরে ফাতেমা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার এর এমডি চিকিৎসক মুক্তার বারি বলেন। আমাদের একটা ক্লিনিক এর কমেটি আছে সেই কমেটির কথার বাইরে এক টাকা নেওয়া হয় না।কমেটির সভাপ্রতি বলেছে ৭০০-৮০০ টাকা নিতে কিন্তু আমি এর থেকে কম নিয়।

তিনি বলেন আমি ৫০ বছর ডাক্তারি করে আসছি এই বাঘাতে।যখন কোন ক্লিনিক ছিলনা আমিই প্রথম ক্লিনিক করি এখানে।আপনি সভাপতি কে জানান তার নির্দেশেই টাকা নেওয়া হয়।এই বলে কয়েকজন কে ডেকে আনে মুক্তার বারি। তারা এসে নিউজ না করার জন্য বলে।

ফাতেমা ক্লিনিকের সামনের ফার্মেসির দোকানদার বলেন এতো টাকা দাম নেওয়া ঠিক হয় নি।তার তো টাকার অভাব নাই।

সেবা নিতে আসা এক ভুক্তভোগী বলেন আমাদের কাছে এখন এতো বেশি টাকা নেয় আমরা তো মুর্খ মানুষ বুঝতেই পারিনি।এরা তো দেশ বেঁচতে সময় লাগবেনা।এদের বিচার হওয়া উচিত।

বাঘা ক্লিনিক সমিতির সভাপতি রায়হান বলেন মুক্তার বারি একজন বেয়াদব মানুষ।এর নামে অনেক অভিযোগ।আমি কোন দিন এতো টাকা নিতে বলিনি।কেন সে ৭০ টাকার ব্যাগ ৪৫০ টাকা নিলো এটা তো ঘোর অন্যায়।এর জন্য ওর শাস্তি হওয়া উচিত।ও এই ভাবে মানুষের সাথে দুর্নীতি করতে পারেনা।যে টা বলেছে এমন কোন নির্দেশ সমিতি থেকে কাউকে বলা হয় নি।

এটা কি দুর্নীতি না। কেন এমন হলো।
বাঘা টিএসও রাশেদ আহমেদ বলেন আমি নতুন এসেছি ওদের সেবা সম্পর্কে এখনও আমার জানা নেই তবে খোজ নিয়ে দেখবো যদি কোন অপরাধ পায় ব্যাবস্থা নিবো।

ব্লাড ব্যাগ এর দাম এতো হবার কথা নয় যদি কেউ অভিযোগ দেই তবে অবশ্যই ব্যাবস্থা নিবো।ওদের সমিতি যদি দাম নির্ধারন করে থাকে ৭০০ টাকা এটা অন্যায়। কারন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এর দাম নির্ধারন করে জনগনকে জিম্মি করে টাকা নেওয়া ঠিক না।তবে আমাকে কেউ তথ্য দিলে ব্যাবস্থা অবশ্যই হবে।

error: Content is protected !!