ঢাকাTuesday , 27 July 2021
আজকের সর্বশেষ সবখবর

করোনা কালীন সময়ে মানবতার ফেরিওয়ালা পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ (বিপিএম) বার।

Link Copied!

মোঃ জনি হোসেন করিমগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশের পুলিশ বাহিনীর অর্জনের পাল্লা সুনামের খাতা প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে। সময়ে আলোচনা-সমালোচনায় পুলিশের খারাপ দিক গুলোই বেশি মুখরোচক হয়ে ওঠে।পুলিশ যে জনগণের বন্ধু,আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় নিরলস ভাবে কাজ করার পাশাপাশি তারা যে মানবিক কাজের ক্ষেত্রেও পিছিয়ে নেই তা আমরা ভুলে যাই।দু এক জনের অপকর্মে ফলে পুরো পুলিশ বাহিনীকে সমালোচনায় প্রশ্ন বিদ্ধ করে অনেকে

তবে পুলিশ বিভাগে আছে এমন হাজারো পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ (বিপিএম) বার এর মতো মানবিক পুলিশ অফিসার।যারা সাধারণ মানুষকে সহযোগিতার মতো মানবিক কাজগুলোও নৈতিক দায়িত্ব বলে মনে করেন। পেশাগত দায়িত্ব পালনের পর সাধারণ মানুষের খোঁজ নেয়া কয়জনই বা করার সুযোগ পান। কথাগুলো যার সম্পর্কে বলা হচ্ছে তিনি হলেন কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ (বিপিএম) বার।

বৈশ্বিক মহামারির করোনা ভাইরাসে দেশজুড়ে সর্বস্তরের মানুষের মাঝে চলছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) আতংক পূর্ব থেকে পশ্চিম কিংবা উত্তর থেকে দক্ষিণ, পুরো গ্রহটাই যেন লন্ডভন্ড। প্রত্যেকের মনে এখন শুধু ভয় ‘ছোঁয়াচে এক অদৃশ্য জীবাণুর কারণে কখন জানি কি হয়’।যেখানে আপন মানুষ গুলো ও পর হয়ে গেছে। করোনাকে ভয় না করে মৃত্যু ভয়কে উপেক্ষা করে নিজের জীবনের মায়া না করে অক্লান্ত পরিশ্রম ও নিরলস ভাবে দিন রাত কাজ করে যাচ্ছেন কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশ।

মহামারী রূপ নেওয়া করোনা ভাইরাস সম্পর্কে জনসাধারনকে সচেতন করতে পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ (বিপিএম) বার সহ অন্যান্য অফিসারদের‌ নিয়ে ছুটে বেড়াচ্ছে বিভিন্ন হাটবাজার, পাড়া-মহল্লা গ্রাম, সহ এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করতে মাইকিং দিয়ে প্রচারনা জেলা উপজেলার বিভিন্ন বাজারে সার্বক্ষনিক নজরদারি গুরুত্ব পূর্ণ পয়েন্টে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা।বিভিন্ন রাস্তা যানবাহন ওবাজারে ঘুরে ঘুরে পরিদর্শন ও আইন শৃংখলা বজায় রাখা, জন সাধারনকে সচেতন করতে বার বার সাবান বা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধুয়া,মাস্ক ব্যবহার করা সহ বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন।

জনগণকে সচেতন করার পাশাপাশি জেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট ও জনসমাগম স্থলে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত ও মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন।এই মহামারীতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অসহায়,গরিব, দিনমজুর, তৃতীয় লিঙ্গ, বেদে সম্প্রদায়, রিকশা চালক, ট্রাক ড্রাইভার ও শ্রমিকদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।খাদ্য সামগ্রী অসহায় মানুষদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছেন।পুলিশ যাতে স্বাচ্ছন্দে কাজ করতে পারে এজন্য সকল সদস্যদের মাঝে একধিকবার সুরক্ষা সামগ্রী মাস্ক, সাবান, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, গ্লাভস ওপিপিই বিতরণ

পুলিশ সুপার তাঁর কর্মদক্ষতা দিয়ে প্রমাণ করেন
পুলিশ জনগণের প্রকৃত বন্ধু করোনার সংক্রমণ থেকে জেলাবাসীকে মুক্ত রাখতে তার অবদান অতুলনীয় ও প্রশংসনীয়।আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রন, শক্ত হাতে সন্ত্রাস দমনসহ নানা র্কমদক্ষতা মূলক কাজে প্রমাণিত হয়েছে তার দূরদর্শিতা জনগন সচেতনতার পাশাপাশি বিভিন্ন মানবিক কর্ম কাণ্ডের মাধ্যমে স্থানীয় সহ দেশবাসীর অকুণ্ঠ প্রশংসা কুড়াচ্ছেন পুলিশ সুপার।

পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ,বিপিএম (বার)‌ বলেন, মানবিক মূল্যবোধ দেশপ্রেম, মানব প্রেম আমাদের তাড়া করেছে। তাই আমরা মানব সেবায় অবিরাম ছুটে চলেছি। সেবা দিতে গিয়ে হাজার হাজার পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।জীবন উৎসর্গ করেছেন অনেকে। কিন্তু তাতেও আমরা থেমে নেই। জীবনের শেষ অবধি পর্যন্ত দেশ ও জাতির সেবায় পুলিশ নিজেদের বিলিয়ে দেবে।দেশে করোনা পরিস্থিতিতে সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে লড়াই করছে পুলিশ।

 

তিনি আরো বলেন করোনা ভাইরাসের দুর্যোগের সময় পুলিশের ভূমিকার কারণে এক সময় যারা বাহিনীটির সমালোচনা করতেন তারাও আজ পক্ষে কথা বলছেন এবং প্রশংসা করছেন মানুষ পুলিশকে সম্মান করছে,নিজ দায়িত্বের বাইরে ‘মানবিক পুলিশ’ হিসেবে মানুষের পাশে থেকে সেবা দিচ্ছে। জনগণকে সেবা দেওয়ায় সাধারণ মানুষের অকুণ্ঠ সমর্থন ভূয়সী প্রশংসা পেয়েছে পুলিশ। পুলিশ মানুষের হৃদয়ের মণিকোঠায় স্থান করে নিয়েছে। শুধু বাংলাদেশ থেকে নয়, বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পুলিশের প্রশংসা করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাধিকবার পুলিশের এ ভূমিকার প্রশংসা করেছেন।

 

তিনি আরো বলেন পুলিশ সর্বদা জনগণের পাশ থেকে সেবা দিয়েছে। দেশের যেকোনো দুর্যোগে পুলিশ সবার আগে সর্বদা এগিয়ে আসে যে কোনো সেবায় জনগণের প্রধান ভরসাস্থল পুলিশ। মহামারী করোনায় সেটার চূড়ান্ত রূপ মানুষ দেখেছে। করোনায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পুলিশ সদস্যরা কাজ করেছেন। পুলিশের এসব মানবিক কর্মকা- এখন মানুষের মুখে মুখে। জনগণের সেবা নিশ্চিত করতে দেশের প্রতিটি পুলিশ সদস্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

 

তিনি আরো বলেন সকল প্রশংসা মহান আল্লাহ, তাআলার সন্মান দেয়ার মালিক আল্লাহ সকল শ্রেনী পেশার মানুষের দোয়া ও ভালবাসা নিয়ে, আমি সততা ওনিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে পারি এই কামায় করি।কিশোরগঞ্জ জেলাবাসীর প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি। সকল সময় সরকার কর্তৃক ঘোষনা মেনে চলবেন, রাষ্ট্রের সকল কাজে সহযোগীতা করবেন তাহলেই আমরা পাবো একটি সুখী ও সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ।

error: Content is protected !!