ঢাকাMonday , 26 July 2021

সুনামগঞ্জের মধ্যনগরকে উপজেলা হিসেবে অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দে ভাসছে মধ্যনগরবাসী

Link Copied!

এম এম এ রেজা পহেল, ধর্মপাশা( সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের জেলার মধ্যনগরবাসীর দুই দশক পর দাবি পূরন হল। সোমবার (২৬ জুলাই) জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) সভায় উপজেলার অনুমোদন দেওয়ার পরই আনন্দে ভাসছে মধ্যনগরবাসী। দুপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্থানীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতনকে অভিনন্দন জানিয়ে আনন্দ মিছিল বের করে সাধারণ মানুষ।

সুনামগঞ্জের উত্তর-পশ্চিম নিয়ে বিস্তৃত ২২০ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের প্রায় দেড় লাখ জনগণ অধ্যুষিত এই উপজেলাটি। দীর্ঘদিনের দাবি বাস্তবায়ন হওয়ায় উচ্ছ্বসিত এলাকাবাসী রাস্তায় নেমে আনন্দ মিছিল বের করেছেন।

এই তিনটি উপজেলা গঠন করায় দেশে মোট উপজেলার সংখ্যা ৪৯৫টি। এর আগে দেশের ৮টি বিভাগে ৬৪টি জেলায় মোট ৪৯২টি উপজেলা ছিল।

জানা গেছে ২০০১ সালে আওয়ামী লীগ সরকার নিকারের ৮৬ তম সভায় মধ্যনগরকে উপজেলা হিসেবে রূপান্তরের সিদ্ধান্ত নেয়। পরবর্তী সময়ে চারদলীয় জোট ক্ষমতায় আসার পর উপজেলা বাস্তবায়ন আলোর মুখ দেখেনি। মহাজোট সরকার আবার ক্ষমতায় আসার পর উপজেলা বাস্তবায়নে আবারও কাজ শুরু হয়।

 

অবশেষে নিকারের ২৬ জুলাই সোমবারের সভায় দাবিটি বাস্তবায়িত হয়। মধ্যনগর এখন থেকে সুনামগঞ্জ জেলার একটি উপজেলা হিসেবে গণ্য হলো। এ নিয়ে জেলায় মোট উপজেলা ১২টি।

সীমান্ত নদী সোমেশ্বরীর তীরে অবস্থিত ১৯৭৪ সালে মধ্যনগরকে থানা ঘোষণা করা হয়। স্বাধীনতার পর উপজেলা পদ্ধতি শুরু হলে এলাকাবাসী মধ্যনগরকে থানা হিসেবে ঘোষণার দাবি জানিয়ে আসছিলেন। দাবিটি পূরণ হওয়ায় উৎফুল্ল এলাকার মানুষ। তারা উপজেলা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান ও স্থানীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

উপজেলা ঘোষণার পর স্থানীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন, মধ্যনগরবাসীর দীর্ঘদিনের প্রত্যাশিত দাবি বাস্তবায়ন হওয়ায় বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আজ আমি অত্যন্ত খুশি ও গর্বিত আমার পরিশ্রম সফল হয়েছে। এজন্য মধ্যনগর উপজেলাবাসীকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাই।

তিনি আরও বলেন, একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মডেল উপজেলা গড়তে মধ্যনগর উপজেলাবাসীকে অনুরোধ জানাই। তাদের সহযোগিতা প্রার্থনা করি।

মধ্যনগর উপজেলার চামরদানী গ্রামের বাসিন্দা ও ব্যবসায়ী আলমগীর কবির বলেন, আজ আমরা খুব খুশি। দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন আমাদের পূরণ হয়েছে। আমাদের সংসদ সদস্যকে এজন্য ধন্যবাদ জানাই।

মধ্যনগরের বাসিন্দা মোবারক হোসেন বলেন, আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল মধ্যনগরকে উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করা। আজ সেই স্বপ্ন বাস্তবায়িত হলো। মুজিব শর্তবর্ষে আমাদের শ্রেষ্ঠ উপহার এটি। এজন্য প্রধানমন্ত্রীর ও সাংসদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

এম এম এ রেজা পহেল।

error: Content is protected !!