শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৩:৫৮ অপরাহ্ন
ব্র্যাকিং নিউজ :
চাপে চাপে দিশেহারা এনজিও কর্মিরা ছাতক সিমেন্টকারখানায় ৮৯২ কোটি টাকার প্রকল্প টাকা আত্মসাৎ ও হরিলুটে বিশাল সিন্ডিকেট। গফরগাঁওয়ে ফেসবুকে আপত্তিকর পোষ্ট ভাইরাল হওয়ায় গলায় দড়ি দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা দোয়ারাবাজারে মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেনের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করোনায় জেলাপ্রশাসক রাজশাহীর বরাদ্দকৃত চাউল বাঘা পুজা উদযাপন পরিষদের মাধ্যেমে বিতরন ১ম দিনে চলমান লকডাউন বাস্তবায়নে সরেজমিন অভিযান তদারকি করেন-জেলা প্রশাসক ময়মনসিংহে রাষ্ট্র্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী হোসেনের দাফন সম্পন্ন সাপাহারে কঠোরতম বিধি-নিষেধ ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে প্রশাসনের অভিযান ছাতকে নামাজি শিশু-কিশোরদের মধ্যে বাইসাইকেল বিতরণ “লকডাউনে কঠোর অবস্থানে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা প্রশাসন”

দিনাজপুরের বিরামপুর হাসপাতালে ডাক্তার, নার্সসহ করোনায় আক্রান্ত ৪,

বিরামপুর(দিনাজপুর)প্রতিনিধি, নয়ন //
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১২ জুন, ২০২১
গেলো ৩ দিনে করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু ২

বিরামপুর(দিনাজপুর)সংবাদদাতা:

দিনাজপুরের বিরামপুরে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ক্রমাগতভাবে সংক্রমনের হার বেড়েই চলেছে। বিরামপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত মে মাসে করোনার নুমনা সংগ্রহ হয় ৫৭ জনের। চলতি মাসে ৭৬ জন এবং ভারত থেকে পাসপোর্টধারী বাংলাদেশী যাত্রীরা বর্তমানে বিরামপুরের ৩টি আবাসিক হোটেলে অবস্থান করছে। তাদের মধ্যে ৬৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে ৩ জনের করোনা নমুনা পজেটিভ। গত দুই দিন আগে কাটলা দাউদপুর গ্রামের সুলতান সরকার (৩৫) জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ শোভন বলেন- তিনি করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন।

 

 

অপর দিকে (১১জুন) গতকাল শুক্রবার বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পরিমল কুমার সরকার বলেন-তার বাসার নাইট গার্ড সেকেন্দার আলী (৩৮) গত কয়েকদিন থেকে জ্বর ও ডিসেন্ট্রিতে ভোগায় তাকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখানে সে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যায় বলে জানিয়েছেন তিনি। তাই তিনি বিরামপুরবাসীকে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মাস্ক ব্যবহার করার আহব্বান জানান।

 

 

বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ শ্যামল কুমার রায় জানান,বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ জুলেখা বেগম, ডাঃ আলী হোসেন, নার্সের সুপারভাইজার মোর্শেদা খাতুন এবং মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট নাসিমা সুলতানা করোনা আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন। তিনি আরও বলেন- পার্শ্ববর্তী উপজেলা থেকে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন রোগী বিরামপুর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন।

 

তারপরেও রয়েছে করোনার প্রভাব ও নমুনা সংগ্রহ করণের কার্য্যক্রম। করোনার উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসা নিতে আসছেন অনেকে। আমরা বিশেষভাবে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য আইসোলেশন বেড প্রস্তত রেখেছি। তিনি সকলকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক ব্যবহার করার আহব্বান জানান।

নয়ন হাসান
বিরামপুর দিনাজপুর।

এই জাতীয় আরোও নিউজ দেখুন

ফেসবুকে আমরা আমাদের ফলোও করুন

© All rights reserved © 2018-2021 VORERCOMILLA.COM
ডিজানাইনার বাই এ,কে আজাদ
themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!