মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০২:২৯ পূর্বাহ্ন
ব্র্যাকিং নিউজ :
সুনামগঞ্জের মধ্যনগরকে উপজেলা হিসেবে অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দে ভাসছে মধ্যনগরবাসী খানসামা উপজেলায় লকডাউন বাস্তবায়ন ও বাজার মনিটরিং করছেন এসিল্যান্ড মারুফ হাসান ছাতকে লকডাউনের অযুহাতে সিএনজি- অটোরিকশা খাতে চলছে চরম নৈরাজ্য সাপাহারে কর্মহীন ও অস্বচ্ছল পরিবারে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ বিশ্বনাথে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় অর্থদণ্ড RAB-5 এর অভিযানে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার-১ অবশেষে র‌্যাবের অভিযানে সেই ধর্ষক সোহাগ গ্রেফতার  বিরামপুর পৌরসভায় করোনাকালীন বিশেষ ওএমএস কার্যক্রমের উদ্ধোধন করলেন-পৌর মেয়র আককাস আলী বিশ্বনাথে মাদক সম্রাট তবারক’ আলী গ্রেফতার বিশ্বনাথে প্রেমিকের হাত ধরে উধাও দুই সন্তানের জননী

ইনাতগঞ্জে সরকারের দুই কাবিখা কাজে সাড়ে ৬ লক্ষ টাকার পুকুর চুরি ; তদন্তের দাবি।

হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি আজিজুর রহমান আজিজ , সিলেট
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৫ জুলাই, ২০২১

হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধঃ – হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউপি আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল খালিক ও সাধারন সম্পাদক মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে স্থানীয় সংসদ সদস্য শাহ নওয়াজ মিলাদ গাজী’র দেয়া দু’টি প্রকল্পের দলীয় বরাদ্দ সরকারের কাবিখা কাজের প্রায় সাড়ে ৬ লক্ষ টাকার কাজে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এদিকে দলীয় বরাদ্দ পাওয়ার বিষয়টি ইনাতগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে অবহিত না করায়
নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা বলেন,মাননীয় এমপি মহোদয়ের দেয়া বরাদ্দ দু’জনের মধ্য সীমাবদ্ধতায় দূর্ণীতির ফলে দলের ভাবমূর্তি বিনষ্ট হচ্ছে । দলীয় নেতাকর্মী এ বিষয়ে কিছু জানেননা বলে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জানলে হয়তো সরকারের উন্নয়নের চিত্র জনগনের সামনে তোলে ধরা যেতো। সেটা তারা রহস্যজনক কারনে গোপন রেখেছেন।

জানা যায়,উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউপি আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল খালিক ও সাধারন সম্পাদক মুজিবুর রহমান সম্প্রতি নবীগঞ্জ – বাহুবল আসনের সংসদ সদস্য শাহ নওয়াজ মিলাদ গাজীর কাছ থেকে সরকারের কাবিখা প্রকল্পের ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের মোস্তফাপুর গ্রামের ভিতরের একটি রাস্তা ইটসলিং করার জন্য ৪শ মিটারের প্রায় ২লক্ষ টাকার কাজ নিয়ে আসেন। সম্প্রতি তারা কাজ সম্পন্নও করেছেন। তবে খোঁজ নিয়ে জানা যায়,ইনাতগঞ্জ – সঈদ পুর সড়ক থেকে মোস্তফাপুর গ্রামের মহরম উল্লার বাড়ী পর্যন্ত ৪শ মিটার কাজ করার কথা ছিল। তারা সে পর্যন্ত কাজ না করে অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে ২০০ মিটার কাজ করেই সমাপ্ত করে বিল উত্তোলন করেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,ইনাতগঞ্জ – সৈদপুর সড়ক থেকে ব্যারিষ্টার বাড়ী পর্যন্ত তারা প্রায় ৫০ মিটার ইটসলিং করেন। এরপর থেকে প্রায় ১২০ ফুট পূর্বের আরসিসি ঢালাই কাজ রয়েছে। পূর্বের এই ঢালাই কাজ তাদের হিসাবের মধ্য নিয়ে আসেন। এই আরসিসি কাজের শেষ প্রান্ত থেকে ইরফাত উল্লার বাড়ী পর্যন্ত ২০০ মিটার কাজ করেই সমাপ্ত করেন। মহরম উল্লার বাড়ী পর্যন্ত আর এ কাজ আলোর মুখ দেখেনি।

তাছাড়া অন্য আরোও একটি প্রকল্প
ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির পাশে গাইড ওয়াল নির্মানের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য শাহ নওয়াজ মিলাদ গাজীর কাছ থেকে দলীয় বরাদ্দ হিসেবে ৩ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকা বরাদ্দ নিয়ে আসেন। সম্প্রতি কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বিলও উত্তোলন করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এ কাজেও
ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির আশ্রয় নেয়া হয়েছে। কাজ হয়েছে ৪০ থেক ৫০ ভাগের ভিতরে। এছারাও দলীয় নেতৃবৃন্দের অভিযোগ এ পর্যন্ত তারা নীরবে আরো বরাদ্দ আনার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কোন কিছুই দলীয় ফোরামে আলোচনা করছেনা। দলীয় নেতৃবৃন্দ বলেন কাজ করান,ভাল কথা। দলের নেতাকর্মীদের জানিয়ে স্বচ্ছতার মাধ্যমে করালে তাদের পকেট ভারী হবেনা মর্মে এধরনের দূর্নীতির আশ্রয় নিয়েছেন।

এলাকাবাসী জানান,অভিযুক্ত ব্যক্তিরা সরকার দলীয় লোক হওয়ার কারনে প্রভাব কাটিয়ে কাজ না করেও বিল উত্তোলন করতে পারেন। কারো প্রতিবাদ করার সাহস নাই। কাজ দুটির তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান তারা।এব্যাপারে

নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন বলেন,বিষয়টি তদন্ত করে দেখবো। প্রমানিত হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই জাতীয় আরোও নিউজ দেখুন

ফেসবুকে আমরা আমাদের ফলোও করুন

© All rights reserved © 2018-2021 VORERCOMILLA.COM
ডিজানাইনার বাই এ,কে আজাদ
themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!