ঢাকাThursday , 1 July 2021

দেবিদ্বারে পুকুরের পাড়ভেঙ্গে মাটি চাপায় নিহত শ্রমিক সফিকের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন।

Link Copied!

এম.জে.এ মামুন, দেবিদ্বার কুমিল্লা:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে পুকুর পাড়ের মাটি কাটতে গিয়ে পাড়ভেঙ্গে মাটির চাপায় নিহত শ্রমিক মরহুম সফিকের মরদেহ ময়না তদন্ত শেষে জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

গতকাল ৩০ জুন (বুধবার) সকাল সাড়ে ১১টায় উপজেলার ৪নং সুবিল ইউনিয়নের পশ্চিম পোমকাড়া গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমানের পুকুরে দিনমজুর হিসাবে মাটি কাটতে গিয়ে পুকুরের পাড় ধ্বসে একই গ্রামের মোঃ মোখলেস মিয়া’র’ পুত্র সফিকুল ইসলাম(২৫) এর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়।

তাৎক্ষনিক সংবাদ পেয়ে দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আরিফুর রহমান, অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) মোঃ ছমি উদ্দিন, উপ-পরিদর্শক (এস,আই) আব্দুল বাতেন সহ একদল পুলিশ বেলা দেড়টায় ঘটনাস্থল থেকে নিহত দিনমজুরের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। এসময় পুকুরের মালিক আ: মুনাফ মিয়ার পুত্র মোঃ ছিদ্দিকুর রহমান(৪০)’ কেও থানায় নিয়ে আসেন।

নিহতের মরদেহ আজ ০১ জুলাই (বৃহস্পতিবার) সকাল নয়টায় ময়না তদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ময়না তদন্ত শেষে বেলা দেড়টায় নিহতের মরদেহ তার নিজ বাড়িত পৌছাঁয়। বিকাল তিনটা’য় পশ্চিম পোমকাড়া জামে-মসজিদ ময়দানে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, পশ্চিম পোমকাড়া গ্রামের আ: মুনাফ মিয়ার পুত্র মোঃ ছিদ্দিকুর রহমান(৪০) তার নিজ পুকুরের পাড় কয়েকজন শ্রমিক দ্বারা বিগত ১০/১৫দিন যাবৎ খনন করতে থাকেন। ওই পুকুরের পাড় অপরিকল্পিত ভাবে খনন করার সময় পাড়ের নিচের অংশে প্রায় ৬/৭ ফুট ভেতরের দিকে সুরঙ্গের ন্যায় কেটে ফেলেন, যা ছিলো অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। মাটিকাটা শ্রমিকরা ঝুঁকি নিয়ে পুকুড়ের পারের ভেতরের অংশের মাটি আর কাটতে পারবেনা বলে অপারগতা জানালেও মালিকের চাপের মুখে মাটি কাটছিলেন। এক পর্যায়ে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় বৃষ্টিতে ভেজা পুকুরের পাড়টির উপরে থাকা গাছ-গাছালির ভার সইতে না পেরে ধ্বসেপড়ে, এসময় দিনমজুর সফিক ঘটনাস্থলেই মাটি চাপায় মারা যান। পরে স্থানীয়রা প্রায় দেড় ঘন্টা অভিযান চালিয়ে মাটি সরিয়ে তাকে উদ্ধর করেন।

মোঃ আবু মিয়া জানান, মাটিকাটার কাজে নিয়োজিত ছিলেন ৪ শ্রমিক, ওরা সবাই পশ্চিম পোমকাড়া গ্রামের প্রতিবেশী। ওরা হলেন, মান্নান মিয়ার ছেলে দেলোয়ার হোসেন(৪২), আঃ সামাদের ছেলে সোহেল মিয়া(২৫), সামসুল হকের পুত্র রুবেল মিয়া(২২) ও মোঃ মোখলেসুর রহমানের পুত্র নিহত শ্রমিক সফিকুল ইসলাম(২৫)। মাটি কাটার দায়িত্বে ছিলেন সফিক ও দেলোয়ার এবং মাটি নেয়ার দায়িত্বে ছিলেন রুবেল ও সোহেল। এসময় পাড় ধ্বসে সফিকের উপর পড়ে ঘটনাস্থলে মারযায়।

 

প্রতিবেশী মোঃ বাচ্চু মিয়া জানান, প্রায় ৩/৪ বছর পূর্বে উপজেলার হোসেনপুর গ্রামের আব্দুল খালেক’র মেয়েকে বিয়ে করেছিল সফিক, রায়হান নামে তার একটি ৮মাস বয়সী পুত্র সন্তান আছে। সফিক পরিবারের দান্যতা ঘুঁচাতে দায়-দেনা করে বিদেশ পাড়ি দিয়েছিলেন, সর্বশান্ত হয়ে দেশে এসে এখন দিনমজুরের কাজ করছিলেন।

error: Content is protected !!