স্ত্রীর ওপর খেপে গিয়ে শ্যালককে গাড়িচাপা দিয়ে হত্যা, দুলাভাই গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: ২:২৫ পূর্বাহ্ণ, মে ১৪, ২০২৪

মোঃ রেজাউল ইসলাম শাফি, কুলাউড়া প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায় যৌতুকের জন্য স্ত্রীর ওপর খেপে গিয়ে শ্যালককে গাড়ি চাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগে জুনেদ মিয়া (২৭) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার (১২ মে) রাতে সিলেট নগরের টুকেরবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। জুনেদ উপজেলার গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের পূর্ব কচুরগুল গ্রামের বাসিন্দা।

নিহত কলেজছাত্রের নাম আবু তাহের (২০)। তিনি জুড়ীর জায়ফরনগর ইউনিয়নের শাহপুর এলাকার কাজল মিয়ার ছেলে। পার্শ্ববর্তী কুলাউড়া উপজেলার কুলাউড়া সরকারি কলেজে স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষে পড়তেন তিনি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, প্রায় আড়াই বছর আগে জুনেদ মিয়ার সঙ্গে জায়ফরনগর ইউনিয়নের চাটেরা গ্রামের মৃত রাজুল মিয়ার মেয়ে ফারজানা আক্তারের (২২) বিয়ে হয়। বিয়ের ১ বছর পর থেকে যৌতুকের দাবিতে জুনেদ স্ত্রীর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করেন। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে একাধিকবার সালিশও হয়। গত মঙ্গলবার জুনেদ আবারও ফারজানার ওপর নির্যাতন চালায়। পরে ফারজানা মুঠোফোনে স্বজনদের তা জানালে জুনেদ খেপে গিয়ে তাকে হুমকি-ধামকি দেন। খবর পেয়ে ফারজানার বড় ভাই আবুল হোসেন ও ফুপাত ভাই আবু তাহের মোটরসাইকেলে করে সেখানে যাচ্ছিলেন। তারা পূর্ব কচুরগুলের কাছে হলম্পাবাজারে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে জুনেদ তার নিজের ট্রাক দিয়ে মোটরসাইকেলকে চাপা দেন। এতে গুরুতর আহত হয় মোটরসাইকেল আরোহী আবুল হোসেন ও আবু তাহের। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন আবু তাহের মারা যান। এ ঘটনায় আবু তাহেরের মা জিবা বেগম বাদী হয়ে জুনেদকে আসামি করে জুড়ী থানায় মামলা করেন।

গোয়ালবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবদুল কাইয়ূম বলেন, জুনেদ স্ত্রীর ওপর নির্যাতন চালান বলে অভিযোগ আছে। হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি পরিকল্পিত।

জুনেদের স্ত্রী ফারজানা আক্তার বলেন, স্বজনদের নির্যাতনের খবর জানানোয় জুনেদ তার ওপর খেপে যান। দুর্ঘটনার পর জুনেদ বাড়িতে ফিরে আবুল হোসেন ও আবু তাহেরকে শেষ করে এসেছেন বলেও জানান। পরে ভারতে চলে যাওয়ার কথা বলে বেরিয়ে পড়েন।

এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জুড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সিরাজুল ইসলাম বলেন, ঘটনার পর জুনেদ ভারতে পালানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এরপর বিভিন্ন স্থানে আত্মগোপন করেন। প্রযুক্তির সহায়তায় তার অবস্থান জেনে গতকাল রাত ১০টার দিকে সিলেটের টুকেরবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে জুনেদকে গ্রেপ্তার করে জুড়ী থানায় নিয়ে আসা হয়। তাকে মৌলভীবাজারের আদালতে পাঠানো হবে।