লাকসামে ছাত্রলীগ নেতা হত্যার বিচার দাবীতে প্রতিবাদ মানববন্ধন

প্রকাশিত: ১০:০৮ অপরাহ্ণ, জুন ২৮, ২০২৪

রবিউল হোসাইন সবুজ,লাকসাম প্রতিনিধি: কুমিল্লার জেলার লাকসাম পৌরসভা ছাত্রলীগের সহসভাপতি ইফতেখার আহমেদ অনিক হত্যার এক বছর আজ। কিন্তু এখনো অধরা শীর্ষ দুই খুনি ছাত্রদল নেতা সাইমুন রহমান রকি ও শাকিল। বাকীরা বিভিন্ন মেয়াদে সাজা খেটে বর্তমান জামিনে রয়েছে।

মেধাবী ছাত্রনেতা অনিক হত্যা মামলার প্রধান দুই আসামিসহ অন্য আসামিদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে দলের নেতাকর্মী ও ভুক্তভোগী পরিবার মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। বিক্ষোভ মিছিলে খুনিদের কুশপুত্তলিকাও দাহ্য করা হয়।

শুক্রবার (২৮জুন) সকালে লাকসাম আওয়ামিলীগ দলীয় কার্যালয় থেকে ছাত্রলীগের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের বাইপাসে তারা মানববন্ধন ও প্রধান খুনি রকি-শাকিলের কুশপুত্তলিকা দাহ্য করে।

এ হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন- পৌরসভার গাজীমুড়া গ্রামের মশিউর রহমান সেলিমের ছেলে ছাত্রদল নেতা সাইমুন রহমান রকি, চান্দু মিয়ার ছেলে সাইদ হাসান শাকিল, উত্তর-পশ্চিমগাঁওয়ের ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে জিল্লুর রহমান ফারুক, গাজিমুড়া এলাকার জিন্নতের রহমানের ছেলে মশিউর রহমান সেলিম ও আলী মিয়ার ছেলে আবুল হোসেন মিলন। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও ৪-৫ জন আসামি রয়েছে।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে মানববন্ধনে আওয়ামী নেতাকর্মীরা বলেন, মেধাবী ছাত্রনেতা ইফতেখার আহমেদ অনিকের হত্যার জবাব আমরা আইনীভাবে দিবো। রাজনৈতিক পরিস্থিতি আমরা রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করব। কখনো অস্ত্র হাতে নিবনা। আমরা মাননীয় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ ও সর্বোচ্চ ধৈর্যের পরীক্ষা দিচ্ছি। আমাদের উদ্দেশ্য হলো লাকসামে মাটিকে পবিত্র ও শান্ত রাখা”। আশা করি আমাদের এই প্রতিবাদে অতিদ্রুত অনিক হত্যার মূল আসামীরা আইনের আওতায় আসবে। আগামীদিনে বিএনপি জামায়াতের কোন সন্ত্রাসীকে লাকসামের মাটিতে ঠাই দেবোনা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. রফিকুল ইসলাম হিরা, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ও পৌর মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের, উপজেলা যুবলীগ সদস্য মোঃ ওমর ফারুক, শিহাব খান, সাজেদুল ইসলাম সজল, মোঃ সাইফুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সালাহউদ্দিন সানি, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম তুষার, পৌরসভা ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফ খান স্বাধীন, সাধারণ সম্পাদক কাউছার আহমেদ সহ উপজেলা ও পৌরসভা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য: ২০২৩ সালের ২১ জুন লাকসাম দক্ষিণ বাইপাস সুরক্ষা হাসপাতালের সামনে ছাত্রদল ও যুবদলের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী ছাত্রলীগ নেতা ইফতেখার অনিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আলম সৌরভ ও সেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আলমগীরের ওপর অতর্কিত হামলা ও মারধর করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় অনিককে কুমিল্লা থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। পরে ২৮জুন তার মৃত্যু হয়।